সনাতন ভাবনা ও সংস্কৃতিতে আপনাদের স্বাগতম। সনাতন ধর্মের বিশাল জ্ঞান ভান্ডারের কিছুটা আপনাদের কাছে তুলে ধরার চেষ্টা করছি মাত্র । আশাকরি ভগবানের কৃপায় আপনাদের ভালো লাগবে । আমাদের ফেসবুক পেজটিকে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন। জয় শ্রীকৃষ্ণ ।।

বেদে কি নৌবিমানাদিবিদ্যা বিষয় কোন নির্দেশ আছে? (পর্ব ১)

প্রশ্নঃ বেদে কি নৌবিমানাদিবিদ্যা বিষয় কোন নির্দেশ আছে?

উত্তরঃ হ্যা। (এক্ষণে) সমুদ্র, ভূমি ও অন্তরিক্ষে শ্রীঘ্র পরিভ্রমণ করিবার জন্য বেদশাস্ত্রনুযায়ী যান বিদ্যাবিষয় লিখেতিছি।
তুগ্রো হ ভুজ্যুমশ্বিনোদমেঘে রয়িং ন কশ্চিন্মমৃবাঁ অবাহাঃ।
তমূহথুর্নৌভিরাত্মন্বতীভিরন্তরিক্ষপ্রুদ্ভিরপোদকাভিঃ।।
ঋগ্বেদ ১/১১৬/৩

অনুবাদঃ
(তুগ্রো) যেজন শত্রুকে হিংসা বা হনন করিয়া, নিজ বিজয় ও পরাক্রম দ্বারা বলবান্ হইয়া ধনাদি পদার্থ গ্রহণ করিয়া থাকেন এবং যিনি অশ্ব, রথ, নৌকা ও বিমানাদি যান সকলকে প্রাপ্ত হইবার স্থান 'অর্থাৎ প্রাপ্তি যুক্ত হইতে' ইচ্ছা করেন। (রয়িম) যিনি উত্তম বিদ্যা ও সুবর্ণাদি পদার্থের কামনাকারী বা আকাঙ্খী, তহার পক্ষে ধনাদি পদার্থের কিরূপে পালন ও ভোগ সাধন করিতে হয়, এক্ষণে তাহারই (তদ্বিষয়েরই) ভোগ পালন ও বিজয়ের ইচ্ছা কীরূপে পূর্ণ করিতে হয়, তাহাই বর্ণন করা যাইতেছে। (অশ্বিনা) যে কেহ স্বর্ণ, রৌপ্য, তাম্র, লৌহ, পিতল ও কাষ্ঠাদি পদার্থ দ্বারা বিবিধ প্রকারের কলাযুক্ত নৌকাদি যান ও বিমানাদি রচনা বা প্রস্তুত করিয়া, তাহাতে যথাবৎ অগ্নি, বায়ু ও জলাদি দ্রব্য প্রয়োগ পূর্বক তন্মধ্যে বাণিজ্য দ্রবাদি পূর্ণ করিয়া ব্যাপারার্থে (উদমেঘে) সমুদ্র ও নদী আদিতে যাত্রা করিয়া দ্বীপ দ্বীপান্তরে গমন করেন, তদ্বারা, উক্ত বণিকের পদার্থের উন্নতি ঘটে।

যে কেহ এইরূপ পুরুষকারে রত থাকেন, তিনি (ন কশ্চিন্মমৃবান) পদার্থের প্রাপ্তি ও তাহার রক্ষাযুক্ত হইয়া 'প্রাপ্তি ও তাহা রক্ষা করণে সক্ষম হইয়া' দঃখ বা ঐহিক ক্লেশ প্রাপ্ত হইয়া প্রাণত্যাগ অর্থাৎ ইহলোক পরিত্যাগ করেন না, যেহেতু তিনি পুরুষকারযুক্ত হওয়ায় অলস হন না, 'অর্থাৎ ইহ সংসারে অলস লোকেরাই আলস্য প্রযুক্ত পুরুষকার ও মনকে পবিত্র না করায় দ্রব্যের অভাব ও শারীরিক এবং নানা প্রকার ঐহিক দুঃখ প্রাপ্ত হন'। নৌকাদি যানের সিদ্ধির দ্বারাই লোকে বৈভবশালী হইয়া থাকেন। অগ্নি, বায়ু ও পৃথিব্যাদি পদার্থে শীঘ্র গমনাদি করিবার গুণ বিদ্যমান আছে, যাহাকে অশ্বি বলা যায়।

ইহাদিগের দ্বারা নৌ ও যানাদি প্রস্তুত করিলে, ঐ সমস্ত পদার্থের স্বভাবতঃ শীঘ্র গমনাগমনাদি করিবার গুণ থাকায়, ঐ সমস্ত যানও বেগবান হইয়া থাকে। বেদোক্ত ও যুক্ত দ্বারা সিদ্ধ, এইরূপ নৌ বিমান রথাদি যান দ্বারা পুরুষ অর্থাৎ লোকের পক্ষে দেশ দেশান্তর গমনাগমন সুখের সহিত প্রাপ্ত সম্পাদিত হয়, 'অর্থাৎ লোক এই সকল যান দ্বারা সুখে দেশ দেশান্তরে গমানাগমন করিতে সক্ষম হন' (নৌ ভিঃ) সমুদ্রে সুখে যাতায়াত করিবার জন্য নৌকা অত্যন্ত উত্তম বা শ্রেষ্ঠ যান হইয়া থাকে, (আত্মান্বতীভিঃ) যদ্বারা ঐ নৌকার স্বামী বা তাহার ভৃতগণ উক্ত নৌকাদিকে সমুদ্রাদিতে চালইয়া লইয়া যান। ব্যবসায়ী লোক তথা রাজ পুরুষেরা এইরূপ নৌকারোহন দ্বারা ব্যবসায়ার্থে সমুদ্রে যাতায়াত করিবেন। এইরূপ যদ্বারা আকাশে গমনা - গমনের কার্য সিদ্ধি হয়, যাহাকে বিমান বলে, 'অর্থাৎ যাহা বিমান শব্দ দ্বারা প্রসিদ্ধ', উক্ত (অপোদকাভিঃ) বিমানের এইরূপ শুদ্ধ ও চিক্কণ হওয়া উচিত যে উহাতে জল লাগিলে গলিয়া বা ফাটিয়া না যায় বা কোনরূপ ছিদ্র যুক্ত না হয়, যদ্বারা তন্মধ্যে জল পুবেশ না করে।
(SunVeer সূর্যবীর)
Share this article :
 
Support : Creating Website | Johny Template | Mas Template
Copyright © 2011. সনাতন ভাবনা ও সংস্কৃতি - All Rights Reserved
Template Created by Creating Website Published by Mas Template
Proudly powered by Blogger